ক্যাটাগরিসমূহ
Writer Choice

প্রেমের পাগল


premer pagol@sajebbd

পুরো টাইমলাইন ঘুরে ঘুরে ভাল লাগার মত কিছুই পেলনা রাহাত। পাবেই বা কেমন করে? এই রাত দুপুরে ওর মত সবাই ত আর পিসির দিকে ড্যাবড্যাব
করে তাকিয়ে থাকেনা। অনলাইনে আছে হাতে গোনা কয়েকটা পরিচিত মুখ!
সবার সাথে একচোট চ্যাটিং স্যাটিং হয়ে গেছে তার।
ঘড়ির দিকে তাকালো রাহাত…
ওমা একি! ০৩ঃ৩৫।
হায় হায় সকালে ত আবার ওর ভারসিটি তে ক্লাস আছে।
রাত জেগে ফেসবুকিং করা তার নেশাইয় পরিনত হয়ে গেছে।
নাহহ এবার ঘুমুতে যেতেই হবে। তা নাহলে আবার ক্লাস মিস করতে হবে। সকালের ঘুমটা একদম ভাংতেই চায়না। লগ আউট করতে যাবে ঠিক এমন সময় কে যেন নক করলো তাকে। আগ্রহ নিয়ে মেসেজ দেখবে নাকি বিরক্তি প্রকাশ করবে ঠিক বুঝতে পারলো না রাহাত। ভ্রু কুচকে ইনবক্স টা ওপেন করলো সে। অপরিচিত কেউ।আইডি নেইমটা বেশ তো!
“চন্দ্রাবতী চাঁদ কুমারী”
তা কি মেসেজ দিলো দেখা যাক……
-এত রাতে ফেসবুকে কি করা হচ্ছে হ্যা?

ওমা এই মেয়ে ত বড্ড ফাজিল।
কনভারসেশনের ফাস্ট পর্যায় তেই
এভাবে অভদ্রের মত কথা বলে!তার উপর
আবার আমার সবচেয়ে অপছন্দের ইম দিল।
কড়া করে রিপ্লাই দিতে হবে হুহহহ।
-আমি এত
রাতে ফেসবুকে কি করছি সেটা আপনি
জেনে কি করবেন? শুধু এত রাত কেন
সারারাত থাকব!
any problem?
-ওমা আপনি ত দেখি মেয়েদের সাথে ভাল
করে কথাও বলতে জানেন না! অভদ্রের
মত রিপ্লাই দিচ্ছেন।
-হ্যা আমি অভদ্র,মহা অভদ্র। যান ভাগেন!
দূরে গিয়া মুড়ি খান।
রাগে গিজিগিজ
করতে করতে মেয়েটা রিপ্লাই দেওয়ার
আগেই রাহাত পিসি অফ করে বিছানায়
এসে শুয়ে পড়লো।
বারবার মেয়েটার কথা মনে পড়ছে তার।
নাহ বড্ড খারাপ ব্যবহার
করে ফেলেছে সে।এতটা উশৃঙ্খল
ভাবে কথা বলা উচিত হয়নি তার।
মেয়েটা না জানি আমার ব্যাপারে কি সব
ভাবছে!
সকালে সরি বলতেই হবে।
না না সকালে কেন! এখনই বলা উচিত।
যেই ভাবা সেই কাজ।
পিসিতে নয় এবার মোবাইল দিয়ে লগিন
করলো।
ইনবক্সে কোন মেসেজ
নেই,কিছুটা মনক্ষুন্ন হলো রাহাত।
মেয়েটা মনে হয় একটু বেশিই কস্ট
পেয়েছে।
মেসেজ সিন করে ফেলে রেখেছে।
এখন প্রায় ০৪ঃ১৫।এত
রাতে থাকবে মেয়েটা?
না থাকুক! সকালে এলে ত মেসেজ
দেখবেই।
একটা মেসেজ দিয়েই দেখি……
-আপনি কি আছে?
-হুম!
-খুব হার্ট হয়েছেন?
-হুম!
-আই এম স্যরি প্লীজ ক্ষমা করে দিন
না বন্ধু ভেবে! করবেন না?
-হুম!
-শুধু হুম হুম করেন কেন?
– কি বলবো?
-কিছুই কি বলার নেই?
_কিছু বললেই ত আবার রেগেমেগে বলবেন
দূরে গিয়ে মুড়ি খেতে আমি আবার
ছোটবেলা থেকেই
মুড়ি খেতে পারিনা,গলায় আটকে যায় ,
– ,
-হিহিহিহি ,
-আপনি পাগলের মত হাসেন কেন?
-আমিতো পাগলই!
-ওমা তাই?
-হ্যা তাই।
-তা কি ধরনের পাগল আপনি?
না মানে পাগলের আবার অনেক
ক্লাসেফিকেশন আছে ত ,
– আমি প্রেমের পাগল ,
-বলেন কি! কার প্রেমে?
-আপনার প্রেমে ,
-যাহ দুস্টু ,
-ইশশশশশশশ………
-হা হা হা হা । আপনি ত খুব মজার মানুষ!
-হুম আমি মজার প্রেমিকাও
হতে পারি চান্স পেলে ,
-কি সব বলছেন? আপনি কি সিরিয়াস
নাকি?
-এত রাতে কেউ ফান করে?
-ওমা মাত্র কয়েক মিনিটের পরিচয়ে !!
-কে বললো কয়েক মিনিটের পরিচয়?
আপনাকে আমি অনেক আগে থেকেই চিনি।
ফেসবুকে এক বছর যাবত
আপনাকে ফলো করছি আর রিয়েল
লাইফে তিন বছর যাবত।
-বলেন কি? রিয়েল লাইফে!! ,
-হুম! আচ্ছা একটু ছাদে যাবেন?
-এত রাতে?
-একটু যান না প্লীইইইইইইইজ। দেখুন
না বাইরে সকাল
হয়ে আসছে……আবছা আবছা অন্ধকার!
-ওমা তাই নাকি! আসলেই ত ০৫:০০
টা বেজে গেছে, এখন
দরজা খুলে ছাদে গেলে ত বাসার সবাই
টের পেয়ে যাবে।
-পাক না ! আমার জন্য একটু যেতে পারবেন
না?
-ওকে ওকে যাচ্ছি।
ছাদে গিয়ে মোবাইলে আবার ইনবক্স
টা চেক করলো রাহাত। অদ্ভুত ত! এই
শীতের সকালে আমায়
ছাদে পাঠিয়ে মেয়েটা হাওয়া হয়ে গেল।
কোন মেসেজ ই ত দিচ্ছেনা।
চারদিকে তাকিয়ে দেখছে রাহাত।
পাশের বিল্ডিং এ কে যেন ছাদে! আরে এ
ত সেই ব্যাটারী ওয়ালী (চশমা) এত
সকালে ছাদে কি করছে? পাগল নাকি?
না জানি আমাকে দেখে কি সব
হাবিজাবি ভাবছে!
না এই ডাইনী বুড়ির সামনে থাকবো না।
এই মেয়ের জন্য নিজের সবচেয়ে প্রিয় রুম
টা চেঞ্জ করেছি, করবোই বা না কেন?
সারাক্ষন শুধু জানালা দিয়ে আমার
জানালার দিকে তাকিয়ে থাকতো, কতদিন
ত হাত নাড়িয়ে ডেকেছেও!
বাব্বাহহহহ যা ডেঞ্জারাস মেয়ে!
শেষবার ত বান্ধবীদের
নিয়ে জটলা বেধে আমার
দিকে তাকিয়ে তাকিয়ে হেসেছে যার
জন্য রুম ছেড়েছি ,
এইসব ভেবে ছাদে রুমটার
আরালে চলে গেল রাহাত।
ইনবক্সে মেসেজ এসেছে…………
চন্দ্রাবতীর!
-তুমি আড়ালে চলে গেলে কেন?
-ওমা তুমি কিভাবে জানলে? ,
-হুন জানি জানি!
আমিতো ডাইনী বুড়ি তাই সব জানি।
মনে নেই? একবার কাগজে বড়
করে ডাইনী বুড়ি লিখে জানালার
ওপাসে টানিয়ে রেখেছিলে? ,
– ‘
-কি হলো? অবাক কেন?
-কে তুমি?
-ডাইনী বুড়ি! ‘
-আমি স্বপ্ন দেখছি নাতো??
আচ্ছা তুমি যদি অই মেয়েটাই
হয়ে থাকো তাহলে আমার আইডি কোথায়
পেলে?
-আশ্চর্য ! তোমার আইডিতে ত নিজের
অনেক পিক দিয়ে রেখেছো,না চেনার
কি আছে?
তোমাকে অনেক
আগে থীকি ভালবাসি তাইত
এভাবে ফলো করতাম……আর তুমি কিনা শেষ
পর্যন্ত আমার ভয়ে নিজের রুমটাই চেঞ্জ
কএ ফেলেছো!
-আমি লজ্জিত ;
-আমি ভালবাসিত ‘
-আমি টাস্কিত!
-আমি ভালবাসিত ‘
-আমি টেনশিত!
-আমি ভালবাসিত ‘
-আমিও ভালবাসিত

Like & Share Plz

http://www.facebook.com/sajebraj

http://www.facebook.com/SAJEBCHY

 

মন্তব্য করুন

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.