ক্যাটাগরিসমূহ
Writer Choice

ফ্রিলেঞ্চিং এর সাতকাহন


freelancing@sajebbd

পোস্ট শুরুর আগেই বলি, ওডেস্ক-ইলেন্স এইগুলা খুবই ভয়াবহ জিনিস; ভাবেন একবার আপনে ছোট্ট একটা কম্পিউটারের সামনে বসছেন আর হাজার হাজার মাইল দূরে বইসা থাকা কারো কাজ সল্ভ কইরা দিতেছেন, সহজ কথা না রে ভাই; আসেন শুরু করি এই ভয়াবহ টাইপ জিনিসে কি করবেন, আর কি করবেন না এইটাও উপদেশমুলক পোস্ট, যে কোন রকম গালাগালি ও কটুকথা গ্রহনযোগ্য
কথা ১ – প্রথম শুরু করি অ্যাকাউন্ট খোলা দিয়া; অ্যাকাউন্ট যখন খুলবেন তখন একটু প্রফেশনালিজম দেখাইতেই হবে; ধরেন আপনার নাম ‘মোহাম্মদ কিসলু’ তাহইলে আপনার অ্যাকাউন্ট এর নাম অবশ্যই দিবেন “Muhammad Kislu” বেশি স্মার্টনেস দেখাইতে যাইয়া যদি অ্যাকাউন্ট এর নাম দেন “Yo Yo Kis” তাইলে কিন্তু ঝামেলা; ওই যে বাংলালিংক এর অ্যাড এ দেখছেন না? ‘Yo Yo Kis’ বলার পর মেয়ের বাপ কিরকম ধপাশ কইরা পইরা যায়; ধইরা রাখেন সার্টিফিকেট এর নাম ছাড়া অন্য কোন নাম ইউজ করলে আপনার ফ্রীল্যান্সিং ক্যারিয়ারও এরকম ধপাশ কইরা পইরা যাবে
কথা ২ – পেমেন্ট মেথড অ্যাড করার সময় খুব খিয়াল কইরা কাজটা করবেন, এইখানেও আইসা গেল আবার সেই নাম, আপনার অ্যাকাউন্ট এর যেই নাম, ঠিক সেই নামেই ব্যাংকে অ্যাকাউন্ট খুলবেন, আপনার নাম যদি “Muhammad Kislu” হয় তাইলে ওডেস্ক এর নাম আর ব্যাংক অ্যাকাউন্ট দুইটার নামই “Muhammad Kislu” ই হইতে হবে; নাহইলে টাকা উঠানের সময় ওডেস্ক আর টাকা দেখাবে না, শুধুই বুইড়া আঙ্গুল দেখাবে
কথা ৩ – কাজ শুরু করার আগে নতুনদের সবচেয়ে কমন ডায়লগ হইল “আচ্ছা সহজে আমি কোন কাজটা ভালো শিখতে পারব”; ওয়েল, সরাসরি উত্তর হইল “একটাও না”; আপনি যদি সহজে কাজ শিখেন তাইলে সেইটা ভালো হইব না, আর যদি ভালো কইরা শিখেন তাইলে সহজ হইব না; কাজ শিখার সবচেয়ে ভালো উপায় হইল গুগল এ সার্চ দিয়া কাজ শিখা; ভাইরে শুনতে খারাপ হইলেও সত্যি, আইটি ফার্ম যারা বানায় তারাও খুব কষ্ট কইরা ওই পর্যায়ে যায়, আর যারা অনেক কাজ পায় তারাও ওই লেভেলে পৌছাইতে অনেক কষ্ট করে; কাউর ঠেকা পরে নাই আপনেরে ধইরা ধইরা মুখে তুইলা খাওয়ায় দিবে, আপনেরে বড়জোর তারা হেল্প করবে যে প্লেট কই পাওন যায়; এরপর খাওয়া জোগাড় করা, সেইটা ডান হাত দিয়া ক্যামনে খাইতে হয় সেইটা শিখা সব আপনার কাজ
কথা ৪ – যেই কাজ পারেন সেইটাই করেন; যদি মনে হয় আপনি চমৎকার রাইটিং পারেন, ওইটাই করেন; রাইটিং বাদ দিয়া ওয়েব ডেভেলপমেন্ট ক্যামনে করে সেইটা জানার দরকার নাই; যেই জিনিসটা ভালোবাসেন সেইটা করেন; আপনার ডিজাইন জ্ঞান খুব ভালো? তাহইলে ডিজাইনিং এই থাকেন, টাকা অন্য সেক্টরে বেশি বইলা ওই দিকে লাফ দিয়েন না; কষ্ট কইরা কেউ ফল পায় নাই এইরকম কোথাও হয় নাই, আপনিও পাবেন; একটু দেরীতে পাবেন এই যা
কথা ৫ – ক্লায়েন্ট এর সাথে সুমিষ্ট ব্যবহার করবেন wink emoticon সে যদি আপনেরে দুইটা গালিও দ্যায়, হজম কইরা ফেলতে পারলে ভালো, আর হজম করতে না পারলে ওডেস্ক সাপোর্টে যাইয়া বিচার দ্যান; আপনি কাজ ভালো করলে, প্রফেশনালিজম দেখাইলে ক্লায়েন্ট আপনেরে যে গালি দিবে না, সেইটা শিওর থাকেন; তারপরও যদি দিয়াই বসে তাহইলেও “আইন নিজের হাতে তুলে নেবেন না” wink emoticon আইন সবসময় পরের হাতের জিনিস tongue emoticon তারে পরের হাত (ওডেস্ক সাপোর্ট) এর জন্যই রেখে দিন
কথা ৬ – প্রচুর টেস্ট দিবেন, টেস্টে রেজাল্ট ভালো করার ট্রাই করবেন; ক্লায়েন্ট এর দৃষ্টি আকর্ষণ এর জন্য হয় আপনের ফীডব্যাক লাগবে নাহয় টেস্ট লাগবে; আপনি যেহেতু নতুন, কোন ফীডব্যাক নাই; তাই টেস্ট-ই ভরসা
আজকের দিনের শেষকথা, আবার শুরুর কথাও; এখনকার দিনে মানুষ হইল পণ্য, আপনি যত সুন্দরভাবে নিজেরে উপস্থাপন করতে পারবেন ততই আপনি সফল; ওডেস্ক-ইলেন্সে প্রোফাইল বানানোর সময় নিজেরে মনে করেন OLX এর একটা পণ্য; নিজেরে যত সুন্দর কইরা সাজাইতে পারেন অনলাইনে আপনার বিক্রি হওয়ার সম্ভবনা তত প্রবল; আর যদি বিক্রি হয়া যাইতে পারেন. . . . . . . . . একদিন ডাইকা আম্রে ট্রিট দিলেই হবে

আমার ফেসবুক আইডি

http://www.facebook.com/SAJEBCHY

Page

http://www.facebook.com/sajebraj

 

মন্তব্য করুন

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.