ক্যাটাগরিসমূহ
শক্তি পীঠ

যুগ্যাদা শক্তিপীঠ ( দ্বিতীয় পর্ব )


No imageযুগ্যাদ্যা শক্তিপীঠের দেবী মূর্তি
আসলে দেবী উগ্র চণ্ডীর । তিনি
দশভুজা, পদতলে মহিষাসুরের
ছিন্নমুণ্ড । তিনি অসুরদলনে রতা
। এইরূপ মূর্তি। দেবীর রূপ বর্ণনা
আছে এইরূপ-
সিংহপৃষ্ঠে শোভা পায় দক্ষিণ
চরণ,
বামাঙ্গুষ্ঠে করিয়াছে মহিষমর্দন

বিগলিত কুণ্ডল শোভিছে পৃষ্ঠ
পরে,
কণক কীরিট শোভে মস্তক
উপরে ।
শ্রবণে কুণ্ডল দোলে গলে
গজমতী ।
দিব্যবস্ত্র পরিহিতা দেবী
হৈমবতী ।
হনুমানের আনিত মূর্তি এখন আর
নেই । ক্ষীরগ্রামের রাজা হরি
দত্তকে দেবী স্বপ্নে দেখা
দিয়েছিলেন । বর্তমানে মন্দিরে
যেই মূর্তি আছে- সেই মূর্তি
দাঁইঘাটের ভাগ্যবান শিল্পী
নবীনচন্দ্র ভাস্কর মহাশয়
নির্মাণ করেন । এখানে দেবীর
মূর্তি সারা বছর মন্দির সংলগ্ন
ক্ষীর দীঘির জলে নিমজ্জিত
থাকে । শুধুমাত্র বৈশাখী
সংক্রান্তির আগের দিন জল
থেকে বিগ্রহ তুলে মন্দিরে স্থাপন
করে পুজা করে রাত ফুরোবার
আগেই পুনরায় দিঘীর জলে বিগ্রহ
নিমজ্জিত করা হয় । মূর্তি টি
সিংহ বাহিনী দেবী দশভুজা
মহিষমর্দিনী চণ্ডীকার ।
গ্রামবাসী গন সারা বছর এই
দিনটির জন্য অপেক্ষা করে
থাকেন । এই দিনে গ্রামে কেউ
লাঙল দেন না, ঢেঁকিতে ধান ভানেন
না, অতি প্রয়োজনেও কেউ
গ্রামের বাইরে যান না । দেবীর
বিগ্রহ জল থেকে ঢাক, ঢোল,
কাঁসর, শঙ্খ বাজিয়ে তুলে পূজো
করে সূর্য উঠবার আগেই জলে
নিমজ্জিত করে। কেন এই নিয়ম
জানা নেই । সম্ভবত প্রাচীনকালে
যবন আক্রমণের ভয়ে বহু
মন্দিরের বিগ্রহ এভাবে জলে
লুকিয়ে রাখার প্রথা ছিল। এখনও
মাটি খুঁড়ে এইসব মূর্তি আবিস্কৃত
হয় । সেই থেকেই হয়তো এই
প্রথা চলে আসছে ।
দেবী যুগ্যাদার ভৈরব ক্ষীরখণ্ডক
মহাদেবের মন্দির দেবীর মন্দিরের
পাশেই । এই মহাদেবকে
ক্ষীরেশ্বর ভৈরব নামেও ডাকা হয়
। দেবী যুগ্যাদাকে ভূতদাত্রী
নামেও ডাকা হয় । ভৈরব
শিবলিঙ্গের মাথায় একটি ক্ষত
চিহ্ন । স্থানীয় গ্রামবাসী দের
মতে যবন আক্রমণের ক্ষত
সেটি। দেবীর লীলা দেখে মাঝে
মাঝে অবাক হতে হয় । তিনি
নিজেই ভ্রমরের রূপ ধরে ফিরোজ
শাহের সেনাদের ধ্বংস
করেছিলেন। মহামারী দিয়ে যবন
সেনাদের নাশ করে ত্রিপুরা মন্দির
রক্ষা করেছিলেন। কিন্তু কত
জায়গায় তিনি নিশ্চুপ কেন ছিলেন-
তা তিনিই জানেন । জয় মা যুগ্যাদা

( সমাপ্ত । আগামী পর্বে থাকবে
কালীঘাট শক্তিপীঠ )

মন্তব্য করুন

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.