ক্যাটাগরিসমূহ
শক্তি পীঠ

জ্বালামুখী শক্তিপীঠ(পঞ্চম পর্ব )


549212_473400266160823_3892968462476641076_nsoktipithপূর্ব পর্বে আমরা দেখেছি মা জ্বালা দেবী কিভাবে ফিরোজ শাহের সেনাদের ধ্বংস করেছিলেন । মা হলেন বসুমতীর মতো। শান্ত অবস্থায় সব শান্ত, কিন্তু জুয়ালামুখী বিস্ফোরন হলে যেমন লাভাতে সব নাশ হয়, তেমনই মায়ের ক্রোধ হলে সব সব নাশ হয়ে যায় । চণ্ডীতে স্তবে তাই বলা হয়েছে- হে দেবী, তুমি সন্তুষ্টা হলে সর্ব অভীষ্ট পূর্ণ করো, তুমি ক্রুদ্ধা হলে সর্ব কিছু নাশ করো। ফিরোজ শাহের অধর্ম
দেখতে দেখতে মা তাঁকে শেষে এমন ভাবে ধ্বংস করলেন, যে সত্যি মায়ের মহিমা প্রকাশিত হল । মায়ের ভৈরব হলেন উন্মত্ত । এখানে ভগবান শিব , উন্মত্ত ভৈরব রূপে নিবাস করেন । পাহাড়ের গুহাতেই বাবার মন্দির । ভৈরব দর্শন না করলে শক্তিপীঠ দর্শনের অর্ধাংশ ফল লাভ হয় । এমন মানা হয় বিষাক্ত সর্প গন নাকি বাবার পীঠকে রক্ষা করেন। ভোলানাথ এর এক নাম নাগেশ্বর । তিনি নাগ নাগিনীদের আরাধ্য। দেবীর প্রাচীন মন্দির কোন রাজা প্রথম নির্মাণ করেন- তা নিয়ে মতভেদ আছে। লোককথা অনুযায়ী সেখানে ভূমিচন্দ্র নামক এক রাজা ছিলেন, তিনি তাঁর পূর্বপুরুষ দের কাছে শোনেন সেই পাহাড়ে কোথাও দেবী সতীর জিহ্বা পতিত হয়েছিল। দেবতাদের তেজ সম্পন্ন হয়ে একটি অগ্নিশিখা এখন ও নাকি জ্বলছে । রাজা ভূমিচন্দ্র সেই স্থানের অনেক সন্ধান করেন। কিন্তু না পেয়ে নগরকোটের সামনে একটি দেবীর মন্দির নির্মাণ করেন । একদিন রাজা এক গোয়ালার কাছে দেবীর অগ্নি শিখার কথা শুনলেন। সেই স্থান খুঁজে পেয়ে সেখানেই দেবীর মন্দির নির্মাণ করলেন । আবার মহাভারত মতে পঞ্চপাণ্ডব এই মন্দির নির্মাণ করেছিলেন । এই জ্বালা মন্দিরে অনেক ভক্ত নিজের জীভের অগ্রভাগ নাকি বলি প্রদান করেন। সেই জীভ নাকি আবার গজায়- এমন মতবাদ প্রচলিত আছে । এই পীঠ দর্শন করে এখানে একটি অতি প্রাচীন ভগবান রামচন্দ্রের মন্দির দর্শন করতে হয় । মন্দির টির নাম
ট্যারা’ বা ‘ত্যারচা’ মন্দির । মন্দিরে রাম সীতার যুগল বিগ্রহ আছে । ১৮০০ সালের ভূমিকম্পে মন্দির টি অল্প হেলে যায় ।
এখানে ব্রজেশ্বরী নামক আর একটি দেবীর পীঠ আছে । হিমাচল প্রদেশে কাংড়া অঞ্চলে এই পীঠ। হিমাচল প্রদেশে এই পীঠ । সকলে মিলে বলুন- জয় মা দুর্গা। জয় মা কালী। জয় মা জ্বালা দেবী।

( সমাপ্ত। আগামী পর্বে থাকবে কাশ্মীরের ক্ষীর ভবানী শক্তিপীঠ । ক্ষীর ভবানী শক্তিপীঠ বড় লেখা। পর্বে পর্বে দেওয়া হবে ।)

মন্তব্য করুন

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.