ক্যাটাগরিসমূহ
শক্তি পীঠ

শক্তিপীঠ



sokti pith
বহুদিন ধরে ইচ্ছা শক্তিপীঠ নিয়ে লিখবো। বোধ হয় এর আগে কোন ওয়েবসাইটে এই শক্তিপীঠ নিয়ে লেখাও হয়নি পরে মা কালীর কৃপায় এই লিখবার সুযোগ হল।শক্তিপীঠ সৃষ্টির কথা আপনারা সকলেই জানেন। দক্ষযজ্ঞে মা সতী দেবী দেহ ত্যাগের পর ভগবান শিব নটরাজ তাণ্ডব মূর্তি ধারন করে দেবীর দেহ স্কন্ধে নিয়ে প্রলয় নৃত্য আরম্ভ করেন। ত্রিলোককে অকালে ধ্বংসের হাত থেকে বাঁচাতে ভগবান বিষ্ণু স্বীয় সুদর্শন চক্র দিয়ে দেবীর দেহ খন্ড খন্ড করেন, এরপর ভগবান শিব শান্ত হলেন । দেবীর খন্ড গুলো যেখানে যেখানে পড়েছিল- সেখানে একটি করে দেবী পীঠ সৃষ্টি হয়। ভগবান শিব সেখানে ভৈরব রূপে বিরাজ করতে লাগলেন। শক্তিপীঠ নিয়ে লেখবো, আপনাদের কাছে কিছু কথা তাঁর আগে জানিয়ে রাখি।
১) শক্তিপীঠ ৫১,৫২,১০৮ এই নিয়ে পুরান শাস্ত্র ও তন্ত্র শাস্ত্রে মতভেদ আছে। আমরা পুরান মত মেনে ৫১ পীঠের কথাই লেখবো। আপনাদের জানিয়ে রাখি এখনও কয়েকটি শক্তিপীঠ আবিস্কৃত হয় নি ।
২) প্রাচীন অনেক দেবী মন্দির কে শক্তিপীঠ নাম দেওয়া হয় । যেগুলো আদৌ শক্তিপীঠ না।এক্ষেত্রে কাশীর পণ্ডিত গন যেগুলোকে স্বীকৃতি দিয়েছেন,আমরা সেইগুলিই ধরবো ।
৩) সব শক্তিপীঠের ছবি পাওয়া যায় না ইন্টারনেটে। কারন নিরাপত্তার জন্য কিছু মন্দিরে ফটো তোলা বারন, সেক্ষেত্রে আমরা অন্য কোনো দেবীর ছবি আপলোড দেবো। আপানদের কাছে সেই পীঠ সংক্রান্ত ছবি থাকলে আপনারা তা কমেন্টে আপলোড করবেন।
৪) শক্তিপীঠের পূজো তন্ত্র মতে হয় । সেক্ষেত্রে বলির প্রসঙ্গ আসবেই। আপনাদের কাছে অনুরোধ বলি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে কোন রূপ বিতর্ক করবেন না ।৪) কোন শক্তিপীঠের অস্তিত্ব পাওয়া যায় না। আবার কিছু পীঠ নিয়ে সংশয় আছে। যেমন জয়ন্তী পীঠ , ভ্রামরী পীঠ এগুলোর একাধিক মন্দির আছে । এই গুলো নিয়ে কেউ বিতর্ক করবেন
না। কাশীর পণ্ডিত গন যেই পীঠকে স্বীকৃতি দিয়েছেন- আমরা সেটাকেই চূড়ান্ত ভাবে ধরবো ।
৫) প্রতি শক্তিপীঠ লেখবার আগে নাম্বার দিয়ে দেওয়া হবে। যেমন ১,২,৩,৪,৫ এই ভাবে । আপনারা নাম্বার অনুসারে পর পর পড়বেন ।নাহলে বুঝতে পারবেন না। আশা করছি আপনারা আমার সহায় হবেন মা সকলের মঙ্গল করুন। আজকে এখানেই সমাপ্ত করি। মায়ের ইচ্ছাতে আগামী পর্ব থেকে শক্তিপীঠ সংক্রান্ত লেখা শুরু করবো ।।